আমাদের সাইটে প্লেইস করা অর্ডার সমূহ বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কারণে ক্যান্সেল করা হয়। নিচে কিছু সাধারণ কারণ সমূহ উল্লেখ করা হলোঃ 

  • ব্যাংক ডিপোজিট বাছাই করে প্রতি রবিবার আমাদের সাইটে অসংখ্য অর্ডার প্লেইস করা হয়, ব্যাংক ডিপোজিট বাছাই করে অর্ডার করলে ৭২ ঘন্টা সময় থাকে আমাদের ব্যাংক একাউন্টে টাকা ডিপোজিট করে কনফার্ম করার জন্য। উক্ত সময়ের মধ্যে পেমেন্ট কনফার্ম করতে ব্যর্থ হলে অর্ডারটি অটোমেটিক ক্যান্সেল হয়ে যাবে। 
  • ডুপ্লিকেট অর্ডারঃ আমাদের প্রায় সবগুলো ক্যাম্পেইনে প্রতি কাস্টমার কতগুলো পণ্য অর্ডার করতে পারবেন, তা নির্ধারিত থাকে। তাও কিছু গ্রাহক ভূয়া একাউন্ট খুলে আবার অর্ডার করেন। আমাদের সাইটে প্লেইস করা প্রতিটি অর্ডার মনিটর করা হয়। যদি কোন কারণে কোন অর্ডারে অসংগতি মনে হয়, সাথে সাথে তা ক্যান্সেল করে দেয়া হয়। ইতিমধ্যে ঐ অর্ডারের পেমেন্ট হলে তা রিফান্ডের ব্যবস্থা করা হয়। রিফান্ড পেতে ৩-৭ দিন সময় লাগতে পারে। 
  • কারিগরি ত্রুটিঃ আমাদের ওয়েবসাইটে হাজার হাজার পণ্য রয়েছে। মাঝে মধ্যে কোন কারণবসত কোন পণ্যের ভূল দাম বা তথ্য দিয়ে প্রকাশ হয়ে যেতে পারে। এমতাবস্থায় বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসার সাথে সাথে ঐ পণ্য সংক্রান্ত সব ভূল সংশোধন করা হয় এবং ঐ পণ্য যেসব অর্ডারে রয়েছে তা ক্যান্সেল করা হয়। 
  • স্টক জনিত ইস্যুর কারণেও অনেক সময় অনেক অর্ডার ক্যান্সেল হয়ে যেতে পারে, তবে তা অবশ্যই অর্ডার প্লেইস হওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রাহককে জানানো হবে মোবাইল এস এম এস -এর মাধ্যমে। 
  • পণ্যের গুণগত মানে কোন ত্রুটি খুজে পেলে উক্ত পণ্যের সবগুলো অর্ডার ক্যান্সেল করা হতে পারে। গ্রাহকের ভোগান্তি দূর করতেই এরূপ পদক্ষেপ নেয়া হয়। 
  • অর্ডার করার সময় অবশ্যই বাসার সঠিক এড্রেস দিতে হবে। শুধু রাস্তার নাম বা গলির নাম দিলে অর্ডার ক্যান্সেল হয়ে যাবে। 
  • একই গ্রাহক যদি একাধিক একাউন্ট ব্যবহার করেন তাহলে তার সব অর্ডার ক্যান্সেল করা সহ সবগুলো একাউন্ট ডিজেবল করে দেয়া হবে। 

উক্ত কারণ সমূহ ছাড়াও আরো অনেক কারণে বেঙ্গলহাট কর্তৃপক্ষ যেকোন অর্ডার ক্যান্সেল করার অধিকার রাখে। এক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।